তাজা খবর
অবহেলা নয়, জানুন রান্নাঘর সুরক্ষায় করণীয়

অবহেলা নয়, জানুন রান্নাঘর সুরক্ষায় করণীয়

প্রতিটি বাড়ির জন্যই রান্নাঘর অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি স্থান। এই রান্নাঘর থেকেই আমাদের খাবারের ব্যবস্থা করা হয়। আবার এই রান্না ঘরই নানা রোগের উৎপত্তিস্থল। কারণ রান্নাঘর অপরিষ্কার থাকলে সেখানে বাসা বাঁধে জীবাণুরা।

কাজেই রান্নাঘরের প্রতি থাকতে হবে অনেক যত্নশীল। সবসময় রান্নাঘর সুরক্ষিত রাখতে হবে। এর জন্য কিছু জিনিস থেকে সাবধান থাকা প্রয়োজন। চলুন জেনে নেয়া যাক সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে-

খোলা খাবার বা পানীয়

কোনো রকম খোলা খাবার, পানীয় রান্নাঘরে রাখবেন না। নইলে আপনার অজান্তেই তাতে মুখ দিতে পারে পোকামাকড়। পড়তে পারে টিকটিকি। যা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষতিকারক।

প্লাস্টিকের তেলের বোতল

অনেকেই প্লাস্টিকের বোতলে তেল ব্যবহার করেন। কিন্তু তা মোটেই বেশিদিন ব্যবহার করবেন না। খুব বেশি হলে দুই মাস। আপনার অজান্তেই ওই বোতলে বাসা বাঁধে জীবানুরা।

পানির বোতল

পানির বোতল কখনোই খোলা বা আলগা অবস্থায় রান্নাঘরে রেখে দেবেন না।

মশলা বা হার্বস

এ দুটি জিনিস খোলা অবস্থায় বেশিদিন বাইরে ফেলে রাখবেন না। এতে মশলার গন্ধ নষ্ট হয়ে যায়।

ফ্রিজের খাবার

খাবার বেশি হলে আমরা ফ্রিজে রাখি। কিন্তু কখনোই তা তিন দিনের বেশি রাখবেন না। তিন দিনের পুরনো খাবার খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষতিকারক।

থালা-বাটি ধোয়ার স্পঞ্জ

যে স্পঞ্জ দিয়ে থালা-বাটি ধোয়া হয় তা এক সপ্তাহ অন্তর পরিবর্তন করে ফেলুন। পানি আর সাবান লেগে থাকায় তার মধ্যে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া জন্মায়। যা আপনি বুঝতে পারবেন না।

বেকিং পাউডার

বেকিং পাওডার, খাবার সোডা ছয় মাসের বেশি ব্যবহার করবেন না। আপনি হয়তো ডেট, মাস মিলিয়েই কিনেছেন। বোতলের গায়ে লেখা থাকে একবছর পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু তা করবেন না।

এছাড়া জ্যাম, সসের বোতল সবসময় ভালো করে মুখ বন্ধ করে রাখুন। ফ্রিজে রেখেছেন, হয়তো ভালো করে মুখ বন্ধ করেননি। তা খেলে কিন্তু শরীরে বিষক্রিয়ার সম্ভাবনা থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*