তাজা খবর
পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর ইউক্যালিপটাস-আকাশমনি কাটা হবে

পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর ইউক্যালিপটাস-আকাশমনি কাটা হবে

পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর বলে ইউক্যালিপটাস ও আকাশমনি গাছ কেটে ফেলার উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বন, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন উপমন্ত্রী হাবিবুন্নাহার।

পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাবউদ্দিনের পক্ষে বৃহস্পতিবার সংসদ অধিবেশনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ উদ্যোগ নেওয়ার কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের এমপি শহীদুজ্জামান সরকারের এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে উপমন্ত্রী বলেন, ‘নানা আকর্ষণ থেকে’ মানুষ আগে আকাশমনি ও ইউক্যালিপটাসের মত ‘পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর’ গাছগুলো লাগিয়েছে।

“তবে মানুষ এখন সচেতন। বিগত কয়েক বছরে মনে হয় না কেউ এসব গাছ লাগিয়েছেন। যে গাছগুলো আছে তা কেটে ফেলার বিষয়ে মন্ত্রণালয়ে আলোচনা হয়েছে। আজ সংসদে নতুন করে অবহিত হওয়ার পর আমরা পরিবেশবান্ধব নয় এমন গাছগুলি যাতে তাড়াতাড়ি অপসারিত হয় সেই উদ্যোগ নেব।”

মকবুল হোসেনের এক সম্পূরক প্রশ্নে উত্তরে প্রতিমন্ত্রী বলেন, নিয়ম অনুযায়ী সিটি করপোরেশনগুলোর আবর্জনা সরানোর ট্রাক রাতে চলাচল করার কথা।

“কিন্তু কিছু কিছু করপোরেশন গাফিলতি করে দিনে পরিবহন করে। করপোরেশনগুলোর কাছে আমাদের অনুরোধ, ময়লা রাতে অপসারণ করবেন।”

জলবায়ু ফান্ডের টাকায় কর্মকর্তারা বিদেশ সফর করছেন- এ তথ্য সত্যি কি না, তা জানতে চান জাতীয় পার্টির এমপি পীর ফজলুর রহমান।

জবাবে হাবিবুন্নাহার বলেন, “যে ফান্ডের টাকায় বিদেশ সফরের কথা বলা হচ্ছে সেখানে টাকার পরিমাণ বেশি নেই। আমি অল্প কিছুদিনে দেখেছি, কেউ বিদেশ যাননি। বিদেশে যারা যাচ্ছেন তারা বিদেশি অর্থায়নে যাচ্ছেন।“

ওয়ার্কার্স পার্টির লুৎফুন নেসা খানের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বর্তমানে দেশে সরকার নিয়ন্ত্রিত বনভূমির পরিমাণ ৬৩ লাখ ৬৮ হাজার ৭৬৫ দশমিক ৬৭ একর।

এটি দেশের মোট আয়তনের প্রায় ১৫ দশমিক ৫৮ শতাংশ। আর দেশের বৃক্ষ আচ্ছাদিত ভূমির পরিমাণ মোট আয়তনের ২২ দশমিক ৩৭ শতাংশ বলে তথ্য দেন প্রতিমন্ত্রী।

মোয়াজ্জেম হোসেনের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ২০১৬ সালে জয়বায়ু ঝুঁকিতে থাকা শীর্ষ দেশের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ছয় নম্বরে। আর ২০১৯ সালে সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান সাত নম্বরে নেমেছে।

“সরকার প্রতিনিয়ত উদ্যোগ গ্রহণ করার ফলে বাংলাদেশের জয়বায়ু সহিষ্ণুতা কিছুটা বেড়েছে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*