তাজা খবর
চুক্তি না বুঝেই হতাশা প্রকাশ পুরোনো কু-অভ‌্যাস: তথ‌্যমন্ত্রী

চুক্তি না বুঝেই হতাশা প্রকাশ পুরোনো কু-অভ‌্যাস: তথ‌্যমন্ত্রী

চুক্তি না পড়ে, না বুঝেই হতাশা প্রকাশ করেন যারা, সেটা তাদের পুরোনো কু-অভ‌্যাসেরই ফল বলে মন্তব্য করেছেন তথ‌্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, সবকিছুতেই হতাশা ব্যক্ত করা, না পড়েই প্রতিক্রিয়া দেওয়া তাঁদের অভ্যাস, এমনকি নিজের ব‌্যাপারেও তাঁরা আশাবাদী নন বলেই মনে হয়। সে কারণেই তাঁরা বোঝেননি যে, এলপিজি মানে প্রাকৃতিক গ্যাস নয়, বরং ‘ক্রুড অয়েল’ বা অশোধিত পেট্রোলিয়াম পরিশোধন করার সময় প্রাপ্ত উপজাত, যা রপ্তানির সুযোগ দেশের জন‌্য অর্থনৈতিকভাবে অনেক লাভজনক।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের প্রচার উপকমিটির সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সদ‌্য সমাপ্ত ভারত সফরে সম্পাদিত চুক্তির বিষয়ে বিএনপি, বাসদ ও তেল-গ্যাস-বিদ‌্যুৎ-বন্দর রক্ষা কমিটির মন্তব্য প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা ও আওয়ামী লীগের প্রচার উপকমিটির সভাপতি এইচ টি ইমাম, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

হাছান মাহমুদ এ সময় ব‌্যাখ‌্যা করে বলেন, ‘বিদেশ থেকে আমরা যে “ক্রুড অয়েল” আমদানি করি তা “রিফাইন” বা পরিশোধন করার সময় তেলের পাশাপাশি প্রাপ্ত উপজাত হচ্ছে এই এলপিজি, যা রপ্তানির সুযোগ আমাদের অর্থনীতির জন‌্য সুসংবাদ।’

ফেনী নদীর পানি ভারতের ব‌্যবহার প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘ত্রিপুরা থেকে আসা ফেনী নদীর পানি ভারত আগে থেকেই ব‌্যবহার করে আসছিল, এবারের চুক্তিতে তাকে একটি কাঠামো-সীমার মধ‌্যে আনা হয়েছে। আর ১ দশমিক ৮২ কিউসেক হচ্ছে মাত্র ৫১ লিটার পানি।’

‘প্রধানমন্ত্রীর এই সফর অত‌্যন্ত ফলপ্রসূ’ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক বলেন, ‘চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব‌্যবহারে “স্ট‌্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর—এসওপি” বা কার্যপ্রণালি স্বাক্ষর একটি অসামান্য অগ্রগতি। চট্টগ্রাম ও মোংলা, বিশেষ করে চট্টগ্রাম বন্দর ভারতের ব‌্যবহারের ফলে আমাদের প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা ও বন্দর ব‌্যবহারজনিত নানামুখী আয় বৃদ্ধি পাবে। ভারতের পূর্বাঞ্চলের সঙ্গে বাণিজ্যের জন্যই মূলত গড়ে তোলা চট্টগ্রাম বন্দর দেশের অর্থনীতিতে আরও ভালো ভূমিকা রাখতে পারবে।’

বুয়েটে ছাত্র নিহত হওয়ার ঘটনা নিয়ে প্রশ্নের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘অত্যন্ত দুঃখজনক এ ঘটনা তদন্তাধীন। তদন্তে যে বা যারাই দোষী প্রমাণিত হবে, তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর কাউকে আটক করার অর্থ তাকে দোষী সাব্যস্ত করা নয়, তদন্তের পরই দোষী কে বা কারা বোঝা যাবে।’

আওয়ামী লীগের প্রচার উপকমিটির কার্যক্রমের ওপর আলোকপাত করে মন্ত্রী এ সময় জানান, ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, সিলেটের পর এবার ২৭ অক্টোবর খুলনায় ‘তারুণ্যের ভাবনায় আওয়ামী লীগ’ উন্মুক্ত সেমিনারের আয়োজন করা হচ্ছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবনীভিত্তিক যে গ্রন্থটি প্রচার উপকমিটি প্রকাশ করেছিল, মুজিব বর্ষ উপলক্ষে সেই গ্রন্থের দ্বিতীয় সংস্করণ প্রকাশিত হবে। আর শিগগিরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর রচিত ‘গণতন্ত্রের বহ্নিশিখা’রও দ্বিতীয় সংস্করণ এবং একটি ফটো অ্যালবাম প্রকাশ করা হবে।

প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম চলমান দুর্নীতিবিরোধী অভিযান নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘দুর্নীতি বা দুর্বৃত্তায়নের হোতা যে-ই হোক, কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*