তাজা খবর
রাঙ্গুনিয়া-চন্দনাইশের শীতকালীন সবজি আসছে শহরে

রাঙ্গুনিয়া-চন্দনাইশের শীতকালীন সবজি আসছে শহরে

রাঙ্গুনিয়ার ১৫টি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় ২ হাজার হেক্টর জমিতে শীতকালীন সবজির চাষ হয়েছে। চাষিদের কাছ থেকে নগর ও বিভিন্ন উপজেলার পাইকারি সবজি ব্যবসায়ীরা কিনে নিয়ে যাচ্ছেন।

চন্দনাইশে শঙ্খ নদীর তীরবর্তী দোহাজারী, ধোপাছড়ি, বরমা, বরকল বৈলতলী এলাকা থেকে নৌকাযোগে চাষিরা শীতকালীন শাকসবজি আনছেন। সেখান থেকে পাইকারী ব্যবসায়ীরা সবজি কিনে ট্রাক, পিকআপসহ বিভিন্ন পরিবহনে নগরের কাঁচাবাজারগুলোতে সরবরাহ করছেন।

জানা যায়, উত্তর রাঙ্গুনিয়ার সরফভাটা, শিলক, বেতাগী, দক্ষিণ রাঙ্গুনিয়ার রাজানগর, পারুয়া, দক্ষিণ রাজানগর, লালানগর হোছনাবাদ ইউনিয়নের বিস্তীর্ণ এলাকায় এ বছর সবজি চাষ করেছেন ৭শ’ কৃষক। পৌরসভার ঘাটচেক কর্ণফুলী নদীর পাড়ে দাঙ্গার চরেও হয়েছে সবজি চাষ। এসব সবজির মধ্যে রয়েছে- আলু, ফুলকপি, বাঁধাকপি, মূলা, শসা, বেগুন, টমেটো, শিম, মরিচ, পেঁয়াজ, লালশাক, লাউ, মিষ্টি কুমড়া, ধনিয়া পাতা ও গাজর। প্রতিকেজি টমেটো ৩০ টাকা, ফুলকপি ২৫ টাকা, শসা ৩০ টাকা, বেগুন ৩৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

অপরদিকে শঙ্খচরে শীতকালীন শাকসবজির মধ্যে মিলছে- মুলা, পালংশাক, সরিষা শাক, মূলাশাক, লাল শাক, লাউশাক, বেগুন, শিম, মিষ্টি কুমড়া, লাউ, বরবটি, তিতকরলা, শসা প্রভৃতি।

বর্তমানে পাইকারি বাজারে শীতের সবজির দাম কিছুটা বেশি। চাষিরা খাঁচিভর্তি সবজি বিক্রি করেন। এখানকার পাইকারি বাজারে মুলা এক খাঁচি ১ হাজার থেকে ৩ হাজার টাকা, বেগুন ৩ থেকে ৪ হাজার, শিম প্রতিকেজি ১০০ থেকে ১২০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া প্রতি কেজি ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, লাউ ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, বরবটি কেজিপ্রতি ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, তিতকরলা ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, শসা ৪০ থেকে ৪৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

রাঙ্গুনিয়ার পারুয়া ইউনিয়নের কাটাখালী গ্রামের কৃষক আবদুল গফুর জানান, এ বছর ২ একর জমিতে সবজি চাষ করেছি। সবজির ফলন ভাল হওয়ায় দামও পাচ্ছি ভালো। যা খরচ হয়েছে, তা উঠে আসবে বলে আশা করছি।

শঙ্খচরের সবজি চাষি মোহাম্মদ আলী জানান, ভাদ্র মাসের শুরু থেকে মুলা, বেগুন, বরবটি ও শিম চাষ শুরু হয়। কার্তিক মাসে এসব সবজি বাজারে বিক্রি করা যায়। আশ্বিন মাসের শেষের দিকে ফুলকপি ও বাঁধাকপি রোপণ করা হয়। অনেকে বেশি লাভের আশায় আগাম সবজি বাজারে নিয়ে যায়।

এদিকে চট্টগ্রামের বাজারে এসব সবজি আসার পর দাম বেড়ে যায় স্বাভাবিক নিয়মে। শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) চকবাজার ও রেয়াজউদ্দিন বাজারে ফুলকপি ৬০-৭০ টাকা, বাঁধাকপি ৪০-৫০ টাকা, শিম ১০০ টাকা, মুলা ৪০-৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।পাশাপাশি অন্যান্য সবজির দাম ৬০ টাকার নিচে নামেনি। এতে নাভিশ্বাস হচ্ছে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির ক্রেতাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*