তাজা খবর
ব্রণ ও খোস পাঁচড়া থেকে মুক্তি মিলবে এই তেল ব্যবহারে

ব্রণ ও খোস পাঁচড়া থেকে মুক্তি মিলবে এই তেল ব্যবহারে

ত্বক ও চুলের যাবতীয় সমস্যায় প্রাচীনকাল থেকেই নিম পাতা ব্যবহৃত হয়। আয়ুর্বেদেও বিভিন্ন চিকিৎসার দাওয়াই হিসেবে নিম ব্যবহারের উল্লেখ রয়েছে। আপনি জানেন কি? নিম তেল আপনার ত্ব ও চুলের যাবতীয় সমস্যার সমাধান করতে পারে!

এই তেলের রয়েছে বিভিন্ন পুষ্টিগুণ- টাইগ্লিসারিডস, ভিটামিন ই, স্টেরলস, লিনোলিক এসিড, স্বাস্থ্যকর ফ্যাটি অ্যাসিড, অ্যান্ট-ব্যাক্টেরিয়াল, অ্যান্টি-আর্থ্রাটিক, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি, অ্যান্টি-ম্যালারিয়াল, অ্যান্টি-টিউমার, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদানসমূহ।

প্রাকৃতিক এই তেল ত্বক ও চুল সুরক্ষা করে। প্রত্যেকেই কোনো না কোনো প্রসাধনী ত্বক ও চুলে ব্যবহার করেই থাকে। এতে যেসব কেমিকেল ব্যবহৃত হয় সেসবের ক্ষতিকর প্রভাব টের পায় ত্বক ও চুল। সেই ক্ষতিকর প্রভাব ধ্বংস করে নিমের তেল। এবার তবে জেনে নিন এই তেলের কার্যকারিতা সম্পর্কে-

১. খোসপাঁচড়া বা চুলকানিজাতীয় চর্মরোগ স্ক্যাবিস নামে পরিচিত। এই রোগটি সারায় নিম তেল।

২. কোথা কেটে বা পুড়ে গেলে নিম তেল লাগালেই স্বস্তি মিলবে। ক্ষত স্থান দ্রুত শুকাবে।

৩. অনেকেই হাত ও পায়ের আঙুলের ভাজে ফাঙ্গাল ইনফেকশনে আক্রান্ত হয়। এই সমস্যার সমাধান করে নিমের তেল।

৪. ত্বকের ব্রণ দূর করতে নিম তেলের জুরি মেলা ভার। নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণ, ফুসকুড়ি, র‌্যাশ ইত্যা সমস্যা দূর করে।

৫. উঁকুন নিয়ে অনেকেই দুশ্চিন্তায় থাকে। এটি অত্যন্ত লজ্জাজনক পরিস্থিতর সৃষ্টি করে। সেইসঙ্গে উঁকুনের কারণে চুল ও স্ক্যাল্পের অনেক ক্ষতি হয়। এই সমস্যা দূর করে নিম তেল। এজন্য চুলে নিয়মিত এই তেল ব্যবহার করতে হবে।

৬. চুল পড়া রোধে নিম তেলের কার্যকারিতা চেখে পড়ার মতো। এই সমস্যার ভুক্তভোগী অনেকেই! চুল পড়া সমস্যার ইতি টানতে নিম তেলের উপর ভরসা রাখুন।

৭. বয়স ৩০ পার না হতেই অনেকের ত্বকে বলিরেখা পড়তে শুরু করে। নিয়মিত নিম তেল ব্যবহারে ত্বক তারুণ্য ধরে রাখবে।

সূত্র: টপটেনহোমরেমেডিস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*