তাজা খবর
চট্টগ্রাম বন্দরে ৫১০ জন নাবিকের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় করোনাভাইরাসের লক্ষণ মেলেনি

চট্টগ্রাম বন্দরে ৫১০ জন নাবিকের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় করোনাভাইরাসের লক্ষণ মেলেনি

চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর দিয়ে গত ১০ দিনে আসা পণ্যবাহী জাহাজের ৫১০ জন নাবিকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। বন্দর স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানিয়েছেন, পরীক্ষায় কোনো নাবিকের মধ্যে করোনাভাইরাসের লক্ষণ পাওয়া যায়নি। এ ছাড়া অন্য কোনো অসুস্থতার লক্ষণও পাওয়া যায়নি।

১ ফেব্রুয়ারি থেকে চীনের যেসব জাহাজ আসছে, সেগুলো জেটিতে ভিড়ানোর আগে বন্দরের বহির্নোঙরে থাকার সময় নাবিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। আর বন্দর জলসীমায় আসার পর জাহাজের ক্যাপ্টেন বন্দরের কাছে নাবিকদের স্বাস্থ্যবিষয়ক ঘোষণা দিচ্ছেন, যেটি যাচাই করে বন্দর জেটিতে ঢোকার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। অথবা বহির্নোঙরে জাহাজ থেকে পণ্য ওঠানো-নামানোর অনুমতি দেওয়া হচ্ছে।

বন্দর স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোতাহার হোসেন বলেন, গতকাল সোমবার বহির্নোঙরে দুটি জাহাজ এবং আগের দিন রোববার তিনটি জাহাজে গিয়ে নাবিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। বন্দর থেকে তালিকা পাওয়ার পর বহির্নোঙরে গিয়ে নাবিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। এখন পর্যন্ত কোনো নাবিকের করোনাভাইরাসসহ অন্য কোনো অসুস্থতার লক্ষণ পাওয়া যায়নি।

বন্দর সূত্রে জানা গেছে, করোনাভাইরাস আক্রান্ত এলাকা চীনের সাংহাই বন্দর থেকে ১৪ দিনের মাথায় গতকাল বন্দরের বহির্নোঙরে আসে এমভি কালামাতা ট্রেডার নামের একটি কনটেইনার জাহাজ। এরপরই এই জাহাজে উঠে নাবিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করান সহকারী বন্দর স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মো. আবছার উদ্দিন।

জানতে চাইলে সহকারী স্বাস্থ্য কর্মকর্তা নুরুল আবছার বলেন, কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে ভাইরাসটি ওই ব্যক্তির গায়ে ২ থেকে ১০ দিন পর্যন্ত সুপ্তভাবে (ইনকিউবেশন) থাকতে পারে। এ সময়ের মধ্যে বা এরপর লক্ষণ প্রকাশ পায়। ফলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে ১৪ দিন পর লক্ষণ প্রকাশ পেত। আর এই জাহাজটির নাবিকেরা চীনের বন্দরে জাহাজেই ছিলেন। এরপরও তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার পর বন্দর কর্তৃপক্ষ জেটিতে ভিড়ানোর অনুমতি দিয়েছে।

এর আগে এমভি ইউনি হারভেস্ট নামে একটি পুরোনো জাহাজ বন্দর জলসীমায় আসার পর ওই জাহাজে থাকা ১৭ চীনা নাবিকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। এই ১৭ জন চীনা নাবিকের মধ্যে ১ জন চীন থেকে ওঠেন। পুরোনো জাহাজটি সীতাকুণ্ডে নেওয়ার পর নাবিকদের আকাশপথে চীনে যাওয়ার কথা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*