তাজা খবর
সীতাকুণ্ড থেকে পাঁচ দিন পর দেশের পথে ১৭ চীনা নাবিক

সীতাকুণ্ড থেকে পাঁচ দিন পর দেশের পথে ১৭ চীনা নাবিক

পাঁচ দিন পর জাহাজে আটকা থাকার পর অবশেষে দেশে ফিরে যাওয়ার নামার সুযোগ পেলেন চীনা নাবিকরা। বুধবার সকাল ১১টার দিকে তিনটি কালো রঙের মাইক্রোবাসে করে তাদের চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিকেলের ফ্লাইটে থাইল্যান্ডের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ ছাড়ার কথা রয়েছে তাদের।

গত শনিবার সীতাকুণ্ডের কদমরসুল এলাকায় জাহাজ ভাঙার পুরোনো কারখানায় আমদানি করা একটি জাহাজে অবস্থান করছিলেন তারা।

মো. আবুল হাশেম আব্দুল্লাহ ও মো. লিয়াকত আলীর যৌথ মালিকানাধীন লালবেগ শিপ ব্রেকিং ইয়ার্ডে গত শনিবার চীনের একটি সমুদ্র বন্দর থেকে জাপানের পতাকাবাহী নয় হাজার টন ওজনের ইউনি হারভেস্ট কার্গো নামক এই জাহাজ আমদানি করা হয়।

এতে চীনের ১৭ জন নাবিক ছাড়াও অন্যান্য দেশের আরও নাবিক ছিলেন। তারা ওই দিন জাহাজ ছেড়ে নিজ নিজ দেশের উদ্দেশ্যে চলে যেতে পারলেও নামতে দেওয়া হয়নি চীনা নাবিকদের।

সম্প্রতি বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস আতঙ্কের কারণে এই পদক্ষেপ বলে জানা যায়। তবে পত্র-পত্রিকায় এ সংক্রান্ত সংবাদ প্রচারিত হলে একদিন পর সোমবার সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিল্টন রায় জাহাজে থাকা চীনা নাবিকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার নির্দেশ দেন।

এ বিষয়ে মঙ্গলবার তিনি জানান, স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার পরে তাদের মধ্যে কারওরই করোনাভাইরাস ধরা পড়েনি তাই তাদের জাহাজ ছাড়ার বিষয়ে কোনো নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*