তাজা খবর
হাটহাজারীতে কোয়ারেন্টিনে ১৫, আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হওয়ার আহ্বান ডাক্তার-প্রশাসনের

হাটহাজারীতে কোয়ারেন্টিনে ১৫, আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হওয়ার আহ্বান ডাক্তার-প্রশাসনের

বিশ্বব্যাপী করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করার পর বিদেশ থেকে দেশে ফিরেছেন হাজারো প্রবাসী। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী তাদের ১৪ দিন কোয়ারেন্টিন বা ঘরে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হলেও তা মানা হচ্ছে না। স্থানীয় প্রশাসন এবং স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে দেশের বিভিন্ন জেলায় হাজারেরও বেশি প্রবাসী ফিরে এসেছেন। তবে তাদের মধ্যে খুব কমই রয়েছে হোম কোয়ারেন্টিনে। এতে করে স্থানীয় পর্যায়ে করোনার ভয়াবহ বিস্তার ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা। কারণ জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) তথ্যানুযায়ী এখন পর্যন্ত দেশে আক্রান্তদের সবাই বিদেশ থেকে আসা আত্মীয়ের মাধ্যমে সংক্রমিত হয়েছেন।

হাটহাজারী উপজেলায় বিদেশফেরত প্রবাসীর সংখ্যা শতাধিক থাকলেও কোয়ারেন্টিনে আছেন মাত্র ১৫ জন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু সৈয়দ মোহাম্মদ ইমতিয়াজ হোসাইন বলেন. যাদের জ্বর সর্দি কাশি হয়েছে তারা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স না এসে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমাদের কাছ থেকে সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। বিশেষ করে বিদেশ ফেরত প্রবাসী ভাইদের কোয়ারেন্টিনে থাকার জন্য অনুরোধ করছি। অনেক প্রবাসী ভাইরা দেশে এসে তা গোপন রেখে সবার সাথে মিশে ঘোরাফেরা করছেন। বিদেশ থেকে অনেকে ফেরত আসলেও এ পর্যন্ত ১৫ জন কোয়ারেন্টিনে আমাদের তত্ত্বাবধানে আছেন। একদিন পরপর আমরা তাদের খোঁজ খবর নিচ্ছি।

এদিকে করোনা ভাইরাসের ইস্যু তুলে হাটহাজারীতে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বৃদ্ধি করার কারণে উপজেলায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত রেখেছে প্রশাসন।

শুক্র-শনিবার রাত ও দিনে উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়ে জরিমানা করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মাদ রুহুল আমীন বলেন, বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রীর “মালের সংকট নেই চরিত্রের সংকট”। যার পরিবারের জন্য খাদ্য সামগ্রী লাগবে ৫ কেজি সেই কিনে নিচ্ছে ৫০ কেজি। এভাবে আমরা সাধারণ মানুষ খাদ্য সামগ্রী মজুদ করে মালের সংকট তৈরি করছি বাজারে। সাধারণ মানুষেরা মনে করছে কয়েক মাস বাসায় গৃহবন্দী হয়ে থাকতে হবে এজন্য খাদ্য সামগ্রী মজুদ করছে।

তিনি আরো বলেন, আমি হাটহাজারীবাসীকে অনুরোধ করবো আপনাদের নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী যতটুকু প্রয়োজন ততটুকু নিবেন। তাই আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হওয়ার আহবান। এবং প্রয়োজন ছাড়া কাউকে বাসা থেকে বের না হওয়ার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

সব ধরনের সভা সমাবেশ, পারিবারিক অনুষ্ঠান ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান না করার নির্দেশ দিয়েছেন।

অপরদিকে প্রশাসনের নির্দেশনা অমান্য করে শুক্রবার ২০ মার্চ রাতে হাটহাজারী উপজেলার আমান বাজারে একটি কমিউনিটি সেন্টারে বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হলে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে তা পন্ড হয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*