তাজা খবর
ফুলবাড়ী উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার চলছে সাজসাজ রব

ফুলবাড়ী উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার চলছে সাজসাজ রব

২০১৫ সালের ৩১ জুলাই বাংলাদেশ-ভারত মুজিব-ইন্দিরা সীমান্ত চুক্তির বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে শুরু হয় নতুন অধ্যায়। দীর্ঘ ৬৮ বছরের বঞ্চনার পর ১৬২টি ছিটমহল একীভূত হলে নাগরিকরা পছন্দমত দেশের হতে পারেন।

ঐতিহাসিক দিনটির ছয় বছরে পদার্পণ উপলক্ষে কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার চলছে সাজসাজ রব,নেয়া হয়েছে নানা কর্মসূচী।

ফুলবাড়ী উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ বছরে প্রায় ২২ কোটি টাকার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালনা করা হয় দাসিয়ারছড়া উন্নয়নে। সেই সঙ্গে দীর্ঘ ৬৮ বছর পিছিয়ে থাকা বিলুপ্ত ছিটমহলবাসীদের আইসিটি বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও কর্মসংস্থানের জন্য ৮৬ লাখ টাকা ব্যয়ে দ্বিতল ডিজিটাল সার্ভিস ইমপ্লয়েন্টমেন্ট এন্ড ট্রেনিং সেন্টার মুজিব বর্ষে উপহার দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে ভূমি জটিলতার বিষয়টি সম্পুর্ণভাবে নিরসন হয়ে গেছে। ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীন এক হাজার ৬৪৩ দশমিক ৪৪ একর ও সরকারি খাস খতিয়ান ভুক্ত ৯ একর জমির প্রাক জরিপ শেষ করে খতিয়ান হস্তান্তর করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃক ৩টি কমিউনিটি ক্লিনিক নির্মাণ করা হয়েছে। প্রায় দুই হাজার ৫৬২ পরিবারে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। দেওয়া হয়েছে দ্রুত গতির ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগ। ইউনিসেফের অর্থায়নে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি স্থাপন করেছে ১৫টি প্রাক প্রাথমিক শিক্ষা কেন্দ্র। উপজেলা কৃষি অফিসার অর্থায়নে কৃষকদের প্রশিক্ষণ ও কৃষি যন্ত্রপাতি দেওয়া হয়েছে।

আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর বেকার যুব ও যুব মহিলাদের দেয়া হয়েছে নানা ট্রেডে প্রশিক্ষণ। এমন আরো হাজারো উন্নয়ন চলছে দুর্বার গতিতে। এ প্রসঙ্গে ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদুর রহমান বলেন,‘বিলুপ্ত ছিটমহলের মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সরকার বদ্ধপরিকর। সরকারের এ উন্নয়ন দাসিয়ারছড়ায় চলমান থাকবে’।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*