জাতীয়

বিএনপি আমলে দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ছিল বাংলাদেশ

দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ছিল বাংলাদেশ। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের বৈশ্বিক দুর্নীতির সূচকে টানা তিনবার দুর্নীতিতে একনম্বর হয়ে হ্যাট্রিক করে বাংলাদেশ। বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট সরকারের আমলে পায় এমন উপাধি!

বিএনপি সরকারের সময়ে দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার এই র‍্যাঙ্কিং নিয়ে আওয়ামী লীগ ১৫ বছরে বিএনপিকে কম কথা বলেনি। ক্ষমতাসীন দলের মন্ত্রী, এমপিদের অনেককেই দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় বিএনপির কড়া সমালোচনা করেছেন। করছেন। কয়েকবছর ধরে দেখছি, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবি’র বিভিন্ন প্রতিবেদনকে অস্বীকার করে বক্তব্য দিতে দেখেছি সরকারদলীয় মন্ত্রী এবং দায়িত্বশীল নেতাদের।

বৈশ্বিক দুর্নীতির সূচক প্রকাশের পরেই কোনো কোনো মন্ত্রী টিআইবির কড়া সমালোচনা করেছেন। সর্বশেষ দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের যে তালিকা প্রকাশ হয় তাতে দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় ১৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১২তম

এর আগের বছর বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৩তম। ২০২১ সালের তুলনায় বাংলাদেশের এক ধাপ অবনমন হয়েছে। অর্থাৎ একবছরের ব্যবধানে দুর্নীতি বেড়েছে। ২০২৩ সালের ৩১ জানুয়ারি এই সূচক প্রকাশের পরই ক্ষমতাসীনদের অনেকেই এই র‍্যাঙ্কিং মিথ্যা, কাল্পনিক বলে টিআইবি’র কড়া সমালোচনা করেছেন।

দুর্নীতিতে বাংলাদেশ যখন চ্যাম্পিয়নের তালিকায় ছিল তখনকার ক্ষমতাসীন দল বিএনপি টিআইবি’র এমন কড়া সমালোচনা করেছিল। যেসব দেশে টাকা পাচার হয়েছে শোনা যায়, সেইসব দেশ থেকে দুর্নীতিবাজদের কী পরিমাণ সম্পদ আছে তা তুলে ধরা। কাজটি কঠিন কিছু নয়। মানি লন্ডারিংয়ে তদন্তকারী কয়েকজন কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে জেনেছি, আন্তরিক সদিচ্ছা থাকলে পাচারকারীদের অবৈধ অর্থ রাষ্ট্রের কোষাগারে আনা সম্ভব। প্রয়োজন আন্তরিক সদিচ্ছার। এই সদিচ্ছা থাকলে সমৃদ্ধ হবে দেশের অর্থনীতি। প্রশ্ন আসে, এই সদিচ্ছা কি দেখাবে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *